শেষ দশক উপস্থিত: কেউ বঞ্চিত না থাকি

খুবই শীঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে এ রমযানের শেষ দশক।

এ পর্যন্ত যা-ই করেছি – করেছি, এখন আর অবহেলা না করে একটু সজাগ হয়ে যাই।

বেশি আমল করতে না পারি, গুনাহর কাজ ছেড়ে দেই। আল্লাহ পাকের কাছে ক্ষমা চেয়ে নতুন জীবন শুরুর এ হল মোক্ষম সুযোগ। এ সুযোগ আল্লাহ পাকের কাছে ক্ষমা পাবার, দুনিয়া ও আখেরাতে মুক্তির।

শেষ দশকের প্রতি রাতেই কয়েক রাকআত নামায পড়ে দোআয় মনোযোগী হওয়া উচিত। যাঁর কাছে চাব, তিনি আমার মালিক ও মুনিব। তিনি আমাকে সৃষ্টি করেছেন, রিযিক দিচ্ছেন। তাঁর কাছেই মৃত্যুর পর ফিরে যাব। সুতরাং যা দরকার, তাঁর কাছে আবেদন-নিবেদন করব। সবসময় করা উচিত ছিল, ভুল হয়ে গেছে, তাই মাফ চেয়ে এখন থেকে চাওয়া শুরু করব। আজীবন তাঁর বাধ্য গোলাম হয়ে থাকার তাওফীক চাব।

দোআ’র জন্য মুনাজাতে মাকবুল বইটি বিস্ময়কর! শেষ দশকে এ বইটি হাতে রাখুন। এলোমেলোভাবে পৃষ্ঠা উল্টিয়ে হলেও দোআগুলো দেখে দেখে পড়ুন, আমীন বলুন। উত্তম হল আরবী পড়তে পারলে, কিন্তু বাংলা অর্থ পড়াটা ফায়দা ও বরকত থেকে খালি নয়। আরবী না পারলে শুধু বাংলা অর্থই পড়ুন।

আল্লাহ তাআলা বান্দার আন্তরিকতা দেখেন! তাঁর কাছে কোনো কিছুর অভাব নেই। তিনি শুধু আল্লাহওয়ালা-নেক বান্দাদের আল্লাহ নন, আমাদের মতন পাপী-তাপিদেরও তিনি আল্লাহ! তাঁর কাছে সবাই নেক তাওফীক চেয়ে নেই। তাঁর কাছে নিজের সব অভাব ও অভিযোগ পেশ করি। তাঁর অসীম-অশেষ দানের ভাগিদার হয়ে সৌভাগ্যবান হয়ে যাই আমরা!

যত দোআই করি, নিজের মাগফেরাত তথা ক্ষমার জন্য সবচেয়ে বেশি আকুল থাকব। আর অন্যান্য দোআও করব।

এ ছাড়া যার পক্ষে যতটুকু সম্ভব তেলাওয়াত, যিকির, ইস্তেগফার, দরূদ শরীফ পড়ব। সবার জন্য সবাই দোআ করব। সবাইকে ক্ষমা করব। যে আত্মীয়-স্বজন-বন্ধুরা আখেরাতে চলে গেছে তাদেরকে ভুলব না! পুরো উম্মতের শান্তি, নিরাপত্তা, হেফাজতের জন্য দোআ করব।

কদরের রাত কোনটি? এ শেষ দশকেই, আবার বিজোড় কোনো রাতে সম্ভাবনা খুব বেশি! তাই কেউই যেন বঞ্চিত না হই। শেষ দশকের প্রতি রাতেই কিছু না কিছু ইবাদত করব আমরা।

খুব বেশি এই দোআ’টি করব, যা আম্মাজান আয়েশা রা. কে নবীজি ﷺ শিখিয়েছেন:

اللَّهُمَّ إِنَّكَ عُفُوٌّ كَرِيمٌ تُحِبُّ الْعَفْوَ فَاعْفُ عَنِّي

অর্থঃ হে আল্লাহ! নিশ্চয়ই তুমি ক্ষমাশীল ও মহানুভব, তুমি ক্ষমা করতে ভালবাস, আমাকে ক্ষমা করে দাও। আমীন।

হে আল্লাহ! তুমি আমাদেরকে শবে কদরে ইবাদতের তাওফীক দান কর, তোমার মাহবুব বান্দা হিসেবে কবুল করে নাও, ক্ষমা করে দাও। আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *