বড় লাভজনক ব্যবসা

হযরত সুহায়ব রা. মক্কা থেকে হিজরত করছেন। ঘর-বাড়ি ছেড়ে বের হয়েছেন। সহায়-সম্পত্তি কোন কিছুর মায়াই নেই দিলে। আল্লাহ তা’আলার সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যেই তাঁর এই যাত্রা। গন্তব্যস্থল সোনার মদীনা।

কুরাইশদের একটি দল তার পিছু নিয়েছে। তাদেরকে দেখে সুহায়ব রা. সওয়ারি থেকে নেমে গেলেন। তূণীর থেকে তীর বের করলেন। বললেন, হে মক্কাবাসী! আমার তীর চালনা সম্পর্কে জানা আছে, একটি তীরও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় না, মনে রেখ তূণীরের শেষ তীরটি থাকা পর্যন্ত আমি তোমাদেরকে বিদীর্ণ করে যাব। এরপর চালাব তরবারি। যতক্ষণ হাতে অস্ত্র থাকবে, শরীরে শক্তি থাকবে, হৃদয়ে প্রাণের স্পন্দন থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত তোমাদের মোকাবিলা করে যাব। আচ্ছা তোমাদেরকে একটা প্রস্তাব দিচ্ছি। ভেবে দেখ, তাতে রাজি আছ কি না? মক্কায় আমার বহু সম্পদ আছে। সেগুলো নিয়ে আমায় ছেড়ে দাও। না হয়, স্ত্রীকে বিধবা করার জন্য, সন্তানকে এতিম করার জন্য এবং মায়ের কোল খালি করার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাও।

মুশরিকরা সুহায়ব রা. এর সম্পদ পেয়েই খুশি হয়ে গেল।

আল্লাহ সুবহানু ওয়া তা’আলা সুহায়ব রা. এর কাজে এতটাই খুশি হলেন যে, নিম্নের আয়াত নাযিল করলেন:

وَمِنَ ٱلنَّاسِ مَن يَشۡرِي نَفۡسَهُ ٱبۡتِغَآءَ مَرۡضَاتِ ٱللَّهِۚ وَٱللَّهُ رَءُوفُۢ بِٱلۡعِبَادِ ٢٠٧

অর্থ: আর কিছু মানুষ এমনও আছে যারা আল্লাহ্ তাআলার সন্তুষ্টির জন্য নিজেকে বিকিয়ে দেয়। আর আল্লাহ বান্দাদের প্রতি বড়ই করুণাময় [সূরা বাক্বারা: ২০৭]

সুহায়ব রা. মদীনায় পৌঁছার আগেই তার এ ব্যবসার খবর নবীজী ﷺ পেয়ে গেলেন। হযরত উমর রা. এবং সাহাবাদের বিরাট জামআত সুহায়ব রা. কে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য হুররা-এর উপকন্ঠ পর্যন্ত এগিয়ে আসলেন। এবং তাকে মুবারকবাদ জানিয়ে বললেন, আপনি অত্যন্ত লাভজনক ব্যবসা করেছেন। সুহায়ব রা. প্রতি উত্তরে বললেন, আপনাদের ব্যবসায়েও যেন আল্লাহ আপনাদেরকে ক্ষতিগ্রস্ত না করেন। এরপর জিজ্ঞাসা করলেন, আমাকে এই খোশ আমদেদ জানানোর কারণ কী? তারা বললেন, আপনার সম্পর্কে আল্লাহ্ তাআলা (উল্লেখিত) আয়াত নাযিল করেছেন। অতঃপর রাসূলুল্লাহ্ ﷺ তাকে দেখে বললেন (অর্থ), সুহায়ব বড় লাভজনক ব্যবসা হয়েছে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *