বরফ গলা জীবন: কদর হবে কখন?

সময়ের গুরুত্ব বিষয়টা আজ আমাদের জীবন থেকে এমনভাবে বের হয়ে যাচ্ছে যে, সময় অপচয় হয়ে গেলে সেটার আফসোস পর্যন্ত হয় না। অথচ মানুষের জীবন কী? ….কিছু সময়েরই তো সমষ্টি। সময়গুলি যেন সেই ‘বস্তার’ মতন, যা নেক আমল দ্বারা পূর্ণ করা জরুরী। আর নেক আমল অমূল্য সম্পদ, যা দুনিয়া ও আখেরাতের জন্য মহা উপকারী বস্তু। এর বিপরীত যত কিছু, যত বেহুদা আলাপ-আলোচনা, যত অপ্রয়োজনীয় কাজ, গুনাহ-র কথা তো বলাই বাহুল্য – সবই হলো আমাদের অমূল্য হায়াত বিনষ্টকারী, ধ্বংসকারী আর দুনিয়া ও আখেরাত বরবাদকারী বিষয়। খুব গুরুত্বের সাথে এ কথা বোঝা দরকার। জীবন ও সময়ের মূল্য নিয়ে একাকী গভীরভাবে চিন্তা করা দরকার। আপনজনদের সাথে এই কথা তাগিদের আলোচনা করা দরকার। ভাবা দরকার আমার অবস্থান কোথায়?

‘আমি ব্যস্ত’,‌ ‘‌‍‍‌‌‍‍আমার হাতে সময় নাই’, ‘আমি ফ্রী’, ‘আমি একদম ফ্রী’, ‘কিছু করার নাই’, ‘সময় কাটছে না’ – এই ধরণের কথা আজ আমরা যত্রতত্র বলে ফেলি। প্রশ্ন হলো: কী নিয়ে ব্যস্ত? কী করার সময় আছে? কী করার সময় নাই? এতো ফ্রী কেন? বাস্তবে সময়গুলো কিভাবে অতিবাহিত হচ্ছে?

সূরা আসর-এ তো আল্লাহ তাআলা ‘সময়’-এর কসম করেছেন। অন্যতম কারণ, সময়-টা অতিবাহিত হয়েই চলছে, কারো জন্য তা হচ্ছে জান্নাতের মাধ্যম, আর কারো জন্য জাহান্নামের।

আমাদের প্রিয় ও সম্মানিত বুযূর্গ হাকীমুল উম্মত থানভী রহ. উনার লেখা-বয়ান-এর মাঝে নানান গল্প ও ঘটনা শুনিয়েছেন। সব ঘটনাই যে একদম সত্য তা হয় তো নয়, কিন্তু প্রতিটি ঘটনা খুবই শিক্ষামূলক এবং প্রতিটির শিক্ষা দ্বীন-দুনিয়ার জন্য উপকারী। সুতরাং, ঘটনাগুলো খুব মনে রাখার মত এবং অনুসরণযোগ্য। প্রতিটি গল্প-ঘটনার পটভূমি কিংবা উপসংহারে হযরত রহ. কুরআন ও হাদীসের অকাট্য দলীল দিয়েছেন। একটি ঘটনায় তিনি বলেছেন: এক ফেরিওয়ালা রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল আর খুবই কাকুতি মিনতি-র সাথে মানুষকে এই বলে উচ্চস্বরে আহবান করছিল, ভাইয়েরা! আমার পুঁজি গলে শেষ হয়ে আসছে….কেউ আমার সদাই কিনে আমার উপর একটু রহম করুন। এক ব্যক্তি তা শোনার পর তার মনে কথাটা খুব দাগ কাটলো! ঘর থেকে বের হয়ে আসলেন ঘটনা কী দেখার জন্য। দেখেন যে, ফেরিওয়ালা একটা বরফখন্ড বিক্রি করছে, যা ক্রমাগত গলছে – গলেই চলেছে। বরফের এই গলন, শেষ হয়ে যাওয়ার প্রবণতা, পানি হয়ে যাওয়ার পরিণতি – তার মালিক-কে অস্থির ও বেচায়েন করে তুলেছে।

….. ভাই! এভাবেই তো আমাদের জীবন নামের ‘বরফটি’ গলছে। পুঁজি যা আছে সব শেষ হয়ে আসছে। হায় আমরা কি চিন্তিত? আমরা কি একটুও সজাগ? আমাদের হায়াত কি ক্রমাগত গলিত বরফের মতই গলে নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে না? হাকীমুল উম্মত মাওলানা থানভী রহ. এ দিকেই ইশারা করছিলেন।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সময়ের মূল্য বোঝার তৌফিক দান করেন। জীবনের পুঁজিকে সঠিক পথে ব্যয় করে আখেরাত তৈরির তৌফিক দিন। আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *