ফেতনা: তার রূপ ও সে সময় করণীয়: ১

হযরত হুযাইফা রা. বলেছেন যে, ফেতনায় লিপ্ত হওয়ার যে সব আলামত রয়েছে তার মধ্যে একটি হল, যে কাজ সব সময় হারাম বলেই বিবেচিত তা এখন হালাল-এর মত। (হিলইয়াতুল আউলিয়া)
 
হাদীসে পাকে আছে যে, ফেতনা আমাদের বাড়িতে বৃষ্টির ফোটার মতন আপতিত হবে। অন্য বর্ণনায় আছে, কালো রাতের অংশের অন্ধকারের মত ফেতনা আসবে।
 
ফেতনার ফলে কী হবে?
 
তার এক প্রভাব এই যে, মানুষ জেনে কিংবা না জেনে মুরতাদ হতে থাকবে। সকালে মুমিন, সন্ধ্যায় কাফের। আবার সন্ধ্যায় মুমিন, সকালে কাফের। আজ তা-ই হচ্ছে। মানুষ এমন কথা বলে যে, সে স্পষ্ট কুফরী করে ঈমান হারাচ্ছে। যেমন: কেউ দ্বীনের কোন হুকুম নিয়ে ঠাট্টা করছে, ইত্যাদি।   
 
ফেতনার আরেক প্রভাব হল মাল ও সম্মানের মোহ খুব বেশি হবে। এত বেশি যে জীবনের উদ্দেশ্যই হল মাল কামাই আর পদোন্নতির মাধ্যমে হোক বা বিভিন্নভাবে সম্মানের তীব্র আকাঙ্ক্ষা। আজ দেখুন: সেই অবস্থাই বিরাজমান। কে কত বেশি কামাই করতে পারে। কার পদ কত উচ্চে – এসবের বাজারই গরম। এ নিক্তিতেই পরিচয় দেয়া-নেয়া হয়। 
 
উম্মতের মধ্যে বিভক্তি-বিভাজন, বিশৃঙ্খলা ফেতনারই আরেক রূপ। 
 
বর্তমানে প্রযুক্তির বিস্তার নানান ফেতনাকে ব্যাপক করেছে। 
 
হাদীসের ‘ফেতনা অধ্যায়’ বা কিতাবুল ফিতান পড়লে আরো অনেক জানা যায়। 
 
আল্লাহ তা’আলা আমাদের হেফাজত করুন। আমীন।

One thought on “ফেতনা: তার রূপ ও সে সময় করণীয়: ১

  • সুন্দর পোস্ট।মাশাআল্লাহ

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *