পবিত্র জীবনী (৪র্থ পাতা)

উয়াইস কারনী রহমাতুল্লাহি আলাইহি (মৃ. ৩৭ হিজরী : ৬৫৭ খৃস্টাব্দ)

উয়াইস কারনী রহমাতুল্লাহি আলাইহি (মৃ. ৩৭ হিজরী : ৬৫৭ খৃস্টাব্দ)

মুখমণ্ডল ছিল কালো। বংশীয় কৌলিন্য বলতে কোন কিছুই ছিল না। লোকসমাজে অখ্যাত ও গুরুত্বহীন এক ব্যক্তি। এসব কিছু সত্ত্বেও ইতিহাস তাঁর নামটি মনীষী ও মহান ব্যক্তিদের সারিতে লিপিবদ্ধ করেছে। পৃথিবী নামক গ্রহের বাসিন্দাদের নিকট তিনি অজ্ঞাত। কিন্তু আকাশবাসীদের নিকট খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব। মৃত্যুস্মরণ যাঁকে আনন্দ দেয়নি। মহানবী ﷺ যাঁর প্রতিচ্ছবি এঁকেছিলেন ওহীর স্মৃতিতে...
আমির ইবনে আবদি কাইস رحمة الله عليه (মৃ. ৫৫ হিজরী : ৬৭৫ খৃস্টাব্দ)

আমির ইবনে আবদি কাইস رحمة الله عليه (মৃ. ৫৫ হিজরী : ৬৭৫ খৃস্টাব্দ)

নবী-ওয়ালা আমল নিয়ে আল্লাহ তাআলার সাথে সাক্ষাত করবেন যিনি। এমন মনোবাসনা লালন করেন যিনি। সিংহ যার কাপড় চুমু খেয়েছিল। ইবাদত-বন্দেগী করেছেন আল্লাহ তাআলাকে প্রত্যক্ষ করার মানসে। আল্লাহ তাআলা ছাড়া অন্য কাউকে ভয় করা তাঁর শরমে বাধতো। মহান আল্লাহ তাআলার প্রতি ঘনিষ্ঠতার জ্যোতি লাভে যিকির ছিল তাঁর প্রধান মাধ্যম। এই উম্মতের রাহেব, দুনিয়া বিরাগী ও আখেরাত অনুরাগী। তাঁকে উম...
আবূ মুসলিম খাউলানী رحمة الله عليه (মৃ. ৬২ হিজরী : ৬৮১ খৃস্টাব্দ)

আবূ মুসলিম খাউলানী رحمة الله عليه (মৃ. ৬২ হিজরী : ৬৮১ খৃস্টাব্দ)

হযরত ঈসা তনয় মারইয়াম আলাইহিস সালামের জান্নাত-সঙ্গী। মুহাম্মাদ ﷺ-এর অনুসরণের পাশাপাশি হযরত ইব্রাহীম আলাইহিস সালামের মু’জিযা যাঁর মাঝে সমাহার হয়েছিল। সিরিয়া ভূণ্ডখণ্ডের ফুল এবং যাহিদ লোকদের প্রধান ব্যক্তি। ভালো ও কল্যাণমূলক কাজে নিজেকে নিয়োজিত করে রেখেছিলেন। মর্যাদার কোন কিছু নজরে পড়ামাত্রই তা নিজে আপ্ত করেছিলেন। রণ-হুঙ্কার সানাই-ধ্বনির চেয়ে বেশি ছিল। তিনি হ...
আলকামাহ ইবনে কাইস رحمة الله عليه(মৃ. ৬২ হিজরী : ৬৮১ খৃস্টাব্দ)

আলকামাহ ইবনে কাইস رحمة الله عليه(মৃ. ৬২ হিজরী : ৬৮১ খৃস্টাব্দ)

আকাশের শিরা-উপশিরায় ও রন্ধ্রে রন্ধ্রে যাঁর আত্মা ঝুলন্ত। হৃদয়ের তন্ত্রীগুলো কুরআনের ধ্বনিতে গুঞ্জরিত হতে থাকতো। কস্তুরি মশকের যাঁর আনাগোনায় কেবল সুঘ্রাণ ছড়াতো। তিনি দরবেশ ও যাহিদ গোষ্ঠীর বুলবুল, ক্বারী সম্প্রদায়ের শোভা এবং এই উম্মতের আল্লাহ্ওয়ালা বুযূর্গ। তিনি আল্কামাহ ইবনে কাইস ইবনে আব্দুল্লাহ্ ইবনে মালিক আন্নাখায়ী আলহামাদানী, আবূ শিবল। প্রখ্যাত তাবেঈ...
রাবী ইবনে খুসাইম رحمة الله عليه (মৃ. ৬৩ হিজরী : ৬৮২ খৃস্টাব্দ)

রাবী ইবনে খুসাইম رحمة الله عليه (মৃ. ৬৩ হিজরী : ৬৮২ খৃস্টাব্দ)

রাসূলে আকরাম ﷺ যদি তাঁকে দেখতেন তাহলে তিনি তাঁকে অবশ্যই ভালোবাসতেন। তাঁর গুঞ্জন ছিল তাসবীহ, কথায় থাকতো আলহামদুলিল্লাহ্। উঠতে-বসতে শোনা যেতো লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ এবং আল্লাহু আকবার। জাগতিক প্রেরণা ও খাহেশ হৃদয়ে বিলুপ্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছিল। ইতিহাসের কর্ণকুহরে যুহদ ও পরকালের জয়গান গেয়েছিলেন এক তরুণ। নওলি যৌবনে যিনি চলেছিলেন তাকওয়া ও আখেরাতের প্রতি অনুরাগী হয়ে। ত...
মাসরূক ইবনুল আজদা’ رحمة الله عليه (মৃ. ৬৩ হিজরী : ৬৮২ খৃস্টাব্দ)

মাসরূক ইবনুল আজদা’ رحمة الله عليه (মৃ. ৬৩ হিজরী : ৬৮২ খৃস্টাব্দ)

সেজদা অবস্থায় ঘুমাতেন। সেজদাবনত ব্যতীত যিনি কখনও ঘুমাননি। খোদাভীতির দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে বেরিয়েছেন। রাতের আঁধারে যিনি একজন সত্যিকার রাহিব এবং মুত্তাকী লোক। আদর্শ ও অনুকরণীয় ব্যক্তি। নির্ভরযোগ্য তাবেঈ। আরিফ বিল্লাহ্। মাবুদের সাথে যাঁর গভীর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। সংবেদনশীল মনের অধিকারী। তিনি আবূ আইশা মাসরূক ইবনে আব্দুর রহমান আলহামাদানী। ইয়েমেন বংশোদ্ভূত। মানব পা...
আহনাফ ইবনে কাইস رحمة الله عليه (মৃ. ৭২ হিজরী : ৬৯১ খৃস্টাব্দ)

আহনাফ ইবনে কাইস رحمة الله عليه (মৃ. ৭২ হিজরী : ৬৯১ খৃস্টাব্দ)

মর্যাদা ছেড়ে পালিয়েছেন যিনি। মর্যাদা ও গৌরব যাঁর পেছনে দৌড়াতো। মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সাহাবী হওয়ার মর্যাদা থেকে বঞ্চিত হলেও তাঁর সন্তুষ্টি অর্জনে ব্যর্থ হননি। তিনি চটে গেলে তাঁর সাথে লক্ষ (ভক্তবৃন্দ) লোক বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠতো। গর্ভকালীন সময়ে নেতৃত্বে আসার মতো যোগ্যতা যাঁর ছিল। অসাধারণ আরব ব্যক্তিদের তিনি একজন। প্রজ্ঞা ও যুহ্দের ময়দানে...
সাফ্ওয়ান ইবনে মুহরিয رحمة الله عليه (মৃ. ৭৪ হিজরী : ৬৯৩ খৃস্টাব্দ)

সাফ্ওয়ান ইবনে মুহরিয رحمة الله عليه (মৃ. ৭৪ হিজরী : ৬৯৩ খৃস্টাব্দ)

সালাত ও নামাযের চেরাগে যিনি রাতকে আলোকিত করেছিলেন। যাঁর ঘরই তাঁর কবর। ব্যক্তিত্বপূর্ণ একজন মানুষ। শুধু আলহামদুলিল্লাহ বলে মানুষকে কাঁদিয়েছেন। আন্তরিকতা আর আমলের একনিষ্ঠতা হৃদয়ের গহিনে ছুঁয়েছে। যাঁর কথামালা হৃদয়কাড়া ছিল। তিনি নেক আবেদ। অসামান্য প্রতিভাবান ও বুযূর্গ লোকদের তিনি একজন। তিনি সাফওয়ান ইবনে মুহ্রিয ইবনে যিয়াদ আলমাযিনী। বিখ্যাত তাবেঈ। রাত জে...

     ৪        ১০ ১১ ১২ ১৩