৯ম তারাবীহ: বারতম পারার মর্মার্থ

সূরা হুদ
মক্কায় অবতীর্ণ, আয়াত ১২৩, রুকু ১০।


প্রথম পাঁচ আয়াত ব্যতীত সূরা হুদ পুরোটাই এই পারায়। সূরাটির সূচনাপর্বে কুরআনের আজমত ও বড়ত্বের কথা বর্ণনা করা হয়েছে। পাক কুরআন অদ্বিতীয় মহান কিতাবের প্রতিটি কথা পুংখানুপুংখ রুপে নিখুঁতভাবে যাচাই করা, সুপরীক্ষিত। শব্দ, ভাষা, অর্থ সবদিক দিয়েই তা অকাট্য নির্ভুল এবং ধ্রুব সত্য। তার বর্ণনায় কোন বিরোধ নেই, কোন কিছুই তার অযৌক্তিক অবান্তর এবং বাস্তব বিরুদ্ব নয়। তার অনুপম ভাষা এবং বর্ণনাধারা, অলৌকিক সাবলীলতা এবং প্রাঞ্জলতায় কটাক্ষ মাত্র, করার সুযোগ নেই। তার মর্মের দেহে ভাষার পরিধান এমন ভাবে রয়েছে যে তাকে বিন্দু মাত্র খসানো বা ঢিলা করারও অবকাশ নেই, করতে গেলেই মাটি। তার প্রতিটি তত্ত্ব এবং তথ্য অকাট্য, কালের পরিবর্তনে তাতে চিড় ধরার সম্ভাবনা মাত্র নেই, রোয কেয়ামত পর্যন্ত তার সার্থকতা, উপাদেয়তা এবং প্রয়োজনীয়তা কেউই অস্বীকার করতে পারবে না।
পুরো পড়তে ক্লিক করুন: বারতম পারা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *