জীবনে সময়ের বরকত পেতে হলে করণীয়: ৬

অত্যন্ত জরুরী হল প্রিয় নবীজি ﷺ-এর পবিত্র সুন্নত অনুযায়ী নেক কাজ করতে থাকা।
মূলত কোনো কাজ ‘নেক’ হওয়ার শর্ত হল সেটা সুন্নত পন্থায় করা। লক্ষ্য করুন। আমরা প্রতি নিয়ত গোসল করি, খাওয়া-দাওয়া করি, গল্প করি, রাস্তায় চলি, দোকানে যাই, অফিস-আদালতে যাই — যত রকম জায়েয কাজই করি সবগুলো ইবাদতের নিয়তে করতে হলে ও তার পূর্ণ সাওয়াব পেতে হলে শর্ত হল সুন্নত অনুযায়ী কাজগুলো করা। এর ফলে কী হবে? আমলগুলো নেক হিসেবে তো বটেই, অনেক ‘নূর’ ও বরকত যুক্ত হয়ে আমাদের নামায়ে-আমলে আজীবনের জন্য যুক্ত হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ! দুনিয়াতে এঁর খায়ের বরকত তো অর্জিত হবেই, মৃত্যুর পর চিরকালের জন্য এঁর লাভ আমরা পেতেই থাকব ইনশাআল্লাহ।
সময় তথা হায়াত সংরক্ষণে প্রিয় নবীজি ﷺ-এর পবিত্র সুন্নত অতুলনীয়। কারণ, গুনাহ মাফ থেকে শুরু করে অসংখ্য নেকি ও অশেষ বরকত এত সহজে পাওয়া দুষ্কর।
একটি উদাহরণ। অন্যতম একটি সুন্নত হল, ধীর-স্থির ও যথাযথভাবে কাজ করা। এতে বাহ্যিক লাভই অনেক। এ সুন্নত অবলম্বনে সময়ে অত্যন্ত বরকত হয়। আমরা এটা পুরোপুরি হৃদঙ্গমও করতে পারি না! এ পন্থায় কাজ করলে অন্তরে খুব শান্তি অনুভূত হয়। কাজ গুছিয়ে করা হল, লাভ হল আবার চিরন্তন নেকী সংরক্ষিত হল!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *