ঈদুল আযহার দিনের সুন্নত ও মুস্তাহাব আমল ও ঈদের নামায

গোসল ও মেসওয়াক করা, নিজের সামর্থ্যানুযায়ী ভাল পোশাক পরিধান করা, সুগন্ধি ব্যবহার করা, আগে আগে ঈদগাহে যাওয়া, ঈদগাহে যাওয়ার সময় এক পথ ব্যবহার করা আর ফেরার সময় অন্য পথ, ঈদগাহে যাওয়ার সময় উচ্চস্বরে তাকবীর বলা, সকাল থেকে কোন কিছু না খেয়ে কুরবানীর গোশত দিয়ে খানা শুরু করা।

ঈদের নামায দুই রাকাত অন্যান্য নামাযের মতই। পার্থক্য শুধু এতটুকু যে, প্রতি রাকাআতে ইমাম-মুক্তাদি সকলকে অতিরিক্ত তিনটি তাকবীর বলতে হয়। প্রথম রাকাআতে ছানা পড়ার পর কেরাআতের আগে আর দ্বিতীয় রাকাআতে কিরাতের পর রুকুর আগে। অতিরিক্ত এ তাকবীরগুলোতে কান পর্যন্ত হাত ওঠাতে হবে। প্রথম রাকাআতে দুই তাকবীরের পর হাত ছেড়ে দিবে, তৃতীয় তাকবীরের পর হাত বাঁধবে। দ্বিতীয় রাকাতে তিনো তাকীবেরর পর হাত ছেড়ে দিবে। চতুর্থ তাকবীর বলে রুকুতে চলে যাবে। ঈদের নামাযের পর খুতবা শোনা ওয়াজিব।

শায়খ রশিদুদ্দীন আহমদ রহ. লিখিত “ঈদুল আযহার পয়গাম” পুস্তিকাটি থেকে সংকলিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *