আল্লাহর পথে দান

আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টির জন্য দান করলে সম্পদে বরকত হয়। সহায়-সম্পত্তি সব তো আল্লাহরই দান। তিনি দেখেন বান্দা এ সম্পদ কী করে। হুকুম হলতাঁর দেয়া এ সম্পদ থেকে তাঁরই ওয়াস্তেতাঁরই পথে আমরা যেন খরচ করি। দেখুন! তিনিই দিলেনআবার তিনিই দিতে বললেন। পুরো নয়কিছু। এটা আমাদের পরীক্ষা। আমরা তাঁর দেয়া সম্পদ কী করলাম? কেয়ামতের দিন এ এক স্বতন্ত্র প্রশ্ন প্রত্যেককে করা হবে, কোন পথে আয় করেছ আর ব্যয় করেছ কোন পথে?

সম্পদ জমা করলে বরকত হয় নাবরং মন সংকীর্ণ ও কৃপণ হয়ে যায়। পক্ষান্তরে সম্পদ ব্যয় করলে মনে প্রশস্ততা আসেঅন্তরে রহম সৃষ্টি হয়, মানুষ উদার হয়। অন্যকে দানে তো ফায়দা অতুলনীয়শুধু নিজের উপর ও পরিবার-পরিজনের জন্য জায়েয উদ্দেশ্যে সাধ্যমত খরচের মাঝেও নিহিত আছে অনেক কল্যাণ।

আমরা আজ খরচ করতেই হাত গুটিয়ে নিয়েছি – দান করব কিভাবে? নিজের ও পরিবারের উপর খরচ করতেই ভীত শুধু এই আশংকায় ‘টাকা-পয়সা শেষ হয়ে যাবে!’ – অন্যকে দানের মানসিকতা তাহলে তৈরি হবে কবে? যে স্বল্প সংখ্যক নেক বান্দাগণ অকাতরে দান করার সুমহান সুন্নতের উপর আমল জারি রেখেছেনতারা পার্থিব জীবনেও ধন্য, ধন্য পরকালেও! আমাদের সবাইকে আল্লাহ তাআলা তাদের থেকে শিক্ষা নিয়ে এই মহৎ পথ অনুসরণের তৌফিক দিন! আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *