মুসলমানের পারিবারিক জীবন – ‌৩

ইসলাম যে মূলনীতিগুলো আমাদের জীবনযাপনের জন্য নির্ধারণ করে দিয়েছে সেগুলোর মধ্যে গভীর তাৎপর্য নিহিত আছে। বুদ্ধি খাঁটিয়ে যেমন সব লাভ জানা যাবে না, লাভগুলোর গভীরতাও সম্পূর্ণভাবে বোঝা যাবে না। কারণ যিনি সৃষ্টি করেছেন, স্বয়ং তিনি দিয়েছেন সেই সব নিয়মনীতি। কোথায় তাঁর জ্ঞান আর কোথায় আমাদের!

আমরা ‘মানুষ’ আল্লাহ তাআলার এক সৃষ্টি। বলা হয়েছে যে, মানুষকে সুন্দরতম আকৃতিতে সৃষ্টি করা হয়েছে। এর উদ্দেশ্যও বলা হয়েছে, শুধুমাত্র আল্লাহ তাআলার ইবাদত বা বন্দেগীর জন্যে। কিন্তু কী দেখা যায়? কত মানুষ বিজ্ঞানী, গবেষক, ডাকতার, ইঞ্জিনিয়ার. সাহিত্যিক বা চিত্রকর, ব্যবসায়ী (বা কত কিছু) বনে তাঁর স্রষ্টাকেই ভুলে বসে। উপরন্তু, অনেকেই এক পর্যায়ে আল্লাহ তাআলার নাফরমান হয়ে যায়। কারণ হল, মানুুষ এক পর্যায়ে নিজেকে ‘বড়’ ভাবতে শুরু করে। এই বড়ত্ব তাকে উদ্বুদ্ধ করে খোদাদ্রোহী হওয়ার জন্য। প্রথমেই কি সে খোদাদ্রোহী হয়ে যায়?! না। সেতো ঐ ব্যক্তিই যে মায়ের পেটে অসহায় থেকে অসহায় অবস্থায় ছিল! তারপর জন্মানোর পরও কত অসহায় অবস্থায় ছিল। কত দুর্বল এক-একটি পর্যায় অতিক্রম করে সে বড় হয়েছে। সে কত তাড়াতাড়ি ভুলে যায় তার মূল অবস্থা!

সামান্য একটু বড় হয়ে সে মায়েরই নাফরমানি শুরু করে সবার আগে। মায়ের কথা শোনে না। অথচ সেই মায়ের কোল আর আঁচলই কিন্তু তার একমাত্র আশ্রয় তখন! সামান্য বিপদে পড়লে দৌঁড়ে মায়ের কোলে সে ঝাঁপ দেয়। বড় বিজ্ঞানী আর বড় সাহিত্যিক হয়ে গেলে তো কথাই নেই! তাকে আর পায় কে? চলবে ইনশাআল্লাহ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *